ফেনীতেও বাড়ছে ডেঙ্গু আতঙ্ক। গত ২১ দিনে জেলার ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট ফেনী জেনারেল হাসপাতালে ডেঙ্গু আক্রান্ত হয়ে ভর্তি হয়েছেন ৩৪ রোগী। এ হাসপাতালে এখনো ১৩ রোগী চিকিৎসা নিচ্ছেন। তাদের সবাই রাজধানীতে এ রোগে আক্রান্ত হয়ে ফেনীতে এসে চিকিৎসা নিচ্ছেন। গত কয়েকদিন ফেনীর আধুনিক সদর হাসপাতালে ডেঙ্গু আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা বৃদ্ধি পাওয়ায় আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়েছে। তবে বিশেষজ্ঞরা বলেছেন, ডেঙ্গু আক্রান্ত হলে আতঙ্কিত হওয়ার কিছুই নেই। যথাসময়ে চিকিৎসা শুরু করা গেলে এ রোগ থেকে পরিত্রাণ পাওয়া সম্ভব। তবে ফেনী জেনারেল হাসপাতালে অতিরিক্ত রোগীর চাপে করিডোর, বারান্দায় ও বিছানায় ডেঙ্গু আক্রান্তদের চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে।

ফেনী আধুনিক সদর হাসপাতালের আবাসিক মেডিক্যাল অফিসার (আরএমও) ডা. আবু তাহের পাটোয়ারি এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। ডেঙ্গু আক্রান্তদের মধ্যে মহিউদ্দিন (৩০) নামে একজনের অবস্থা আশঙ্কাজনক হওয়ায় তাকে ঢাকায় পাঠানো হয়েছে বলে জানান তিনি।

সরেজমিন গিয়ে দেখা যায়, হাসপাতালের পুরাতন ভবনের ৩ নম্বর ওয়ার্ডের বারান্দা-করিডোর, বিশেষ বেড ও কেবিনে ডেঙ্গু আক্রান্ত হয়ে মহিউদ্দিন (৩০), আরাফাত রহমান (২৩), তাফহিমুল সাওয়ারি ইলেন (১৮), কাজী নজরুল ইসলাম আকাশ (১৮), মো. শরীফ (২৫), নোবেল চন্দ্র দাস (২৩) ও অনিক চন্দ্র দাস (২০) চিকিৎসা নিচ্ছেন।

ফেনী জেলা সিভিল সার্জন ডা. নিয়াতুজ্জামান বলেন, এখন পর্যন্ত ফেনীতে অবস্থানকারীদের কেউ ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হয়েছেন, এমন খবর পাইনি। আক্রান্তদের সবাই ঢাকায় থাকতেন, সেখানে ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হয়ে ফেনীতে এসে চিকিৎসা নিচ্ছেন।