ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী হিসেবে নির্বাচিত হওয়ার পর প্রথমবারের মতো ফরাসি প্রেসিডেন্ট ইমানুয়েল ম্যাখোঁর সঙ্গে বৈঠক করেছেন বরিস জনসন। গতকাল বৃহস্পতিবার প্যারিসের এলিসি প্রাসাদে ওই বৈঠকে ম্যাখোঁর সামনে টেবিলে বরিস জনসনের পা রেখে বসার একটি ছবি এরইমধ্যে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে বেশ আলোড়ন তুলেছে। বিবিসির প্রতিবেদনে জানানো হয়েছে, বরিস জনসন এ সময় ম্যাখোঁর সঙ্গে মজা করছিলেন। ছবিতে দেখা যায়, ম্যাখোঁর সঙ্গে আলাপকালে বরিস জনসন একটি পা টেবিলের ওপর উঠিয়ে কথা বলছেন।

আরেক ভিডিওতে দেখা যায়, বরিস জনসন ফটোশ্যুটের সময় তার হোস্টের সঙ্গে মজা করে সামনে রাখা টেবিলে পা তুলে তৎক্ষণাৎ নামিয়ে নেন। তখন তিনি খুব হালকা মেজাজে ছিলেন। জনসন টেবিলে পা তোলার আগেই ম্যাখোঁ তাকে পরামর্শ দিয়েছিলেন, পা রাখার জন্য টেবিলটি ব্যবহার করা যেতে পারে। তবে অনেকেই বলছেন, পা উঠিয়ে কথা বলার মাধ্যমে ম্যাখোঁকে তাচ্ছিল্য করেছেন বরিস জনসন। এক ব্রিটিশ নাগরিক বলেন, বরিস জনসনের আচার-আচরণ ভালো না। যদি বিদেশি কোনো প্রধানমন্ত্রী বাকিংহাম প্রাসাদে এসে এমন আচরণ করতেন, তখন ব্রিটিশ ট্যাবলয়েডগুলো কতটা ক্ষোভ প্রকাশ করত। এক ফরাসি বলেন, আমি হতবাক, ব্রিটিশ রানি এটি কীভাবে নেবেন।

এদিকে ফ্রান্সের লি পারিসিয়ান সংবাদমাধ্যমের খবরে বলা হয়েছে, ম্যাখোঁর সামনের টেবিলে পা রেখে বরিস জনসন ফ্রান্সকে তাচ্ছিল্য করেননি। ইন্টারনেটে কিছু বিষয়ে একটু বেশি দ্রুই প্রতিক্রিয়া দেখানো হয়।

প্রধানমন্ত্রী হিসেবে নির্বাচিত হওয়ার এক মাস পর এই ফ্রান্স সফরে গেলেন বরিস জনসন। গতকাল বৃহস্পতিবার এলিসি প্রাসাদ এক বিবৃতিতে বলেছেন, দুই নেতার আলোচনা ছিল গঠনমূলক ও পরিপূর্ণ। বেক্সিট ইস্যু নিয়ে তাদের মধ্যে আলোচনা হয়।