গাজীপুরে বন্ধুদের সঙ্গে সাঁতার কাটতে গিয়ে মায়ের সামনেই তুরাগ নদীতে তলিয়ে গেছে এক কলেজ ছাত্র। নিখোঁজের ২৪ ঘন্টা পর মঙ্গলবার দুপুরে ওই ছাত্রের লাশ নদী থেকে উদ্ধার করেছে ফায়ার সার্ভিসের ডুবুরী দল। নিহতের নাম অনু চন্দ্র বর্মনের (১৭)। সে গাজীপুর সিটি কর্পোরেশনের গাছা থানাধীন ধীতপুর এলাকার প্রাক্তন শিক্ষক অতুল চন্দ্র বর্মনের ছেলে। নিহত অনু স্থানীয় গাজীপুর সিটি কলেজের উচ্চ মাধ্যমিক শ্রেণীর (এইচএসসি) দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্র।

জিএমপি’র গাছা থানার এসআই) আল-আমিন নিয়াজী ও নিহতের মা বন্যা রাণী বর্মন জানান, দক্ষিণ আফ্রিকা প্রবাসী অতুল চন্দ্র বর্মনের একমাত্র সন্তান অনু চন্দ্র বর্মন সোমবার দুপুরে (১টার দিকে) মা ও তিন বন্ধুর সঙ্গে বাড়ির পাশর্^বর্তী তুরাগ নদীতে গোসল করতে যায়। মা’কে পাড়ে বসিয়ে রেখে বন্ধুদের সঙ্গে নদীতে নামে অনু। গোসলের একপর্যায়ে তারা সাঁতার প্রতিযোগিতা করার সময় অনু পানিতে তলিয়ে যায়। স্বজন ও স্থানীয়রা সন্ধ্যা পর্যন্ত খোঁজাখুঁজি করেও তার সন্ধান পায়নি। খবর পেয়ে টঙ্গী ফায়ার সার্ভিসের ডুবুরী দল মঙ্গলবার ঘটনাস্থলে গিয়ে নিখোঁজ অনুর সন্ধানে নদীতে তল্লাশি শুরু করে। একপর্যায়ে দুপুর দেড়টার দিকে পানির নীচ থেকে অনুর লাশ উদ্ধার করে তারা। নিজের চোখের সামনে একমাত্র সন্তানের মর্মান্তিক মৃত্যুতে বাকরুদ্ধ হয়ে পড়েছেন বন্যা রাণী বর্মন। অনুর বাবা অতুল স্থানীয় একটি স্কুলে শিক্ষকতা করতেন। শিক্ষকতার চাকুরি ছেড়ে বেশ কিছুদিন আগে তিনি বিদেশে পাড়ি জমান।