বহুল আলোচিত আইফোন ১১ উন্মোচন করেছে অ্যাপল। গতকাল ১০ সেপ্টেম্বর আইফোন ১১ উন্মোচন করা হয়। যদিও এখনই হাতে পাওয়া যাবে না আইফোন ১১। এর জন্য ক্রেতাদের ২০ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত অপেক্ষা। তবে ১৩ সেপ্টেম্বর থেকে আইফোন ১১-র প্রি-অর্ডার নেয়া শুরু হবে। আইফোন মানেই আলোচনা আর উত্তেজনা। কিন্তু নতুন আইফোন ঘিরে খুব একটা উন্মাদনা দেখা যায়নি। জেনে নেয়া যাক নতুন আইফোনে কি কি থাকছে?

ছয়টি রঙে পাওয়া যাবে আইফোন ১১। ধূলা ও পানিরোধী মোবাইল ফোনটিতে রয়েছে ৫ দশমিক ৮ ইঞ্চির সুপার রেটিনা এক্সডিআর ডিসপ্লে। এছাড়া থাকছে ট্রিপল ক্যামেরা, ১২ মেগাপিক্সেলের একটি ওয়াইড লেন্স, একটি আল্ট্রা-ওয়াইড লেন্স এবং একটি ১২ টেলিফটো লেন্স। এই লেন্স ফোরকে রেজুলেশনের ভিডিও রেকর্ডিং সাপোর্ট করবে। আর নতুন ক্যামেরা ফিচার ‘ডিপ ফিউশন’ ছবি তোলার বাটনে চাপ দেয়ার আগেই ৮টি ছবি তুলবে। ছবি আগের চেয়ে নিখুঁত হবে। এছাড়া আইফোন ১১-তে অল্প আলোয় ছবি তোলার ক্ষেত্রে বিশেষ সুবিধা পাওয়া যাবে। কারণ রাতের বেলা কিংবা কম আলোয় ছবি তোলার সময় এর নাইট মোড স্বয়ংক্রিয়ভাবে চালু হবে।

অ্যাপল বলছে, আইফোন ১১-তে কুইকটেক ফিচার এর জনপ্রিয় ‘পোর্ট্রেট মোড’ যুক্ত করা হয়েছে; যা পশু-পাখিদের ক্ষেত্রেও কাজ করবে। আর সব ফোনেই ব্যবহার করা হয়েছে চিপসেট এ-থার্টিন বায়োনিক। এছাড়া নতুন ফোনগুলোর ব্যাটারি হবে আগের চেয়ে দীর্ঘস্থায়ী। এদিকে অ্যাপল তাদের নতুন আইফোনে এবার ক্যামেরাকেই বেশি প্রাধান্য দিয়েছে। আর এটা নিয়েই শুরু হয়েছে কৌতুক। কেউ কেউ মজা করে বলছেন, নতুন ক্যামেরা উদ্বোধন করেছে অ্যাপল। এমনকি অ্যাপলের কর্মকর্তারা নতুন ক্যামেরার এতটাই প্রশংসা করেছেন যে অন্য ফিচারগুলোকে ম্লান মনে হবে।

অ্যাপল বলছে, তাদের নতুন আইফোনে উন্নত ক্যামেরা ছাড়াও এ১৩ বায়োনিক চিপসেট এবং উন্নত গ্রাফিক্স রয়েছে। যদিও গ্রাহকের কথা মাথায় রেখে নতুন আইফোনের দাম বাড়ায়নি তারা। এদিকে গত বছরের আইফোনের মতোই যন্ত্রাংশ থাকবে নতুন আইফোনে। বাড়তি হিসেবে ক্যামেরা আর নতুন এ সিরিজ চিপসেট বাদে সবকিছুই আগের মতো। আর ডিসপ্লেতে সামান্য পরিবর্তন ছাড়া তেমন কিছুই উল্লেখযোগ্য নয়। যদিও অ্যাপলের প্রধান নির্বাহী টিম কুকের দাবি, এ যাবতকালের মধ্যে সবচেয়ে শক্তিশালী ও উন্নত আইফোন হিসেবে বাজারে ছাড়া হচ্ছে আইফোন ১১।