যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী মো. জাহিদ আহসান রাসেল এমপি বলেছেন, আমরা দেশব্যাপি খেলাধুলার উন্নয়নের পাশাপাশি ফুটবল খেলার জাগরণের জন্য সর্বাত্বক চেষ্টা চালাচ্ছি। মাদকের কালো হাত থেকে ভবিষৎ প্রজন্মকে রক্ষা করার দায়িত্ব আমাদের। দেশের যুব সমাজকে ধবংস করার যে পায়তারা চলছে তা থেকেও যুব সমাজকে রক্ষা করতে হবে। সেজন্য ছেলে-মেয়েরা যাতে সারা বছর খেলাধুলায় অংশগ্রহণ করতে পারে আমরা সে ব্যবস্থা করছি। পরবর্তীতে আমরা আন্তঃকলেজ ফুটবল টুর্নামেন্টের আয়োজন করব।

তিনি বলেন, কিছু সংগঠন ও ক্লাব এবং কিছু খারাপ ব্যক্তি খেলাধুলার আড়ালে ক্রীড়াঙ্গণকে কলুষিত করার চেষ্টা করছে। ক্রীড়াঙ্গণকে যারা ধবংস করার পাঁয়তারা করছে সেসব ঘৃণিত ব্যক্তি তারা যতো প্রভাবশালী রাজনৈতিক নেতা বা প্রশাসনের লোক হউক না কেন, তাদের সর্বোচ্চ শাস্তির ব্যবস্থা করতে হবে। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী ন্যায় বিচারক সেজন্য তিনি তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিচ্ছেন।

প্রতিমন্ত্রী বুধবার বিকেলে গাজীপুর শহরের শহীদ বরকত ষ্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিত জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান জাতীয় গোল্ডকাপ ফুটবল টুর্নামেন্ট, বালক (অনুর্ধ্ব-১৭) ও বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব জাতীয় গোল্ডকাপ ফুটবল টুর্নামেন্ট, বালিকা (অনুর্ধ্ব-১৭) ফাইনাল খেলার সমাপনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন।

গাজীপুরের জেলা প্রশাসক এসএম তরিকুল ইসলামের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন পুলিশ সুপার শামসুন্নাহার, আওয়ামী লীগ নেতা এড. ওয়াজ উদ্দিন মিয়া। এসময় গাজীপুর জেলা পরিষদের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা জামিল আহাম্মেদ, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) মো. আবু নাসার উদ্দিন, গাজীপুর মেট্রোপলিটন পুলিশের অতিরিক্ত উপ-কমিশনার আবু হানিফ, গাজীপুর সদর উপজেলা চেয়ারম্যান এড. রীনা পারভীন, কাপাসিয়া উপজেলা চেয়ারম্যান এড. আমানত হোসেন খান, শ্রীপুর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান এড. সামসুল আলম প্রধান প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

ফাইনাল খেলায় বালক (অনুর্ধ্ব-১৭) গাজীপুর সদর উপজেলা দল ২-১ গোলে শ্রীপুর উপজেলা দলকে পরাজিত করে চ্যাম্পিয়ন হয়েছে। অপর দিকে বালিকা (অনুর্ধ্ব-১৭) ফাইনাল খেলায় কাপাসিয়া উপজেলা দল ৬-০ গোলে গাজীপুর সদর উপজেলা দলকে পরাজিত করে বিজয়ী হয়েছে।