মাত্র “ক” দিন পরে শুরু হচ্ছে হিন্দু সম্প্রদায়ের প্রধান ধর্মীয় উৎসব শারদীয় দূর্গাপূজা। আগামী ৩ই অক্টোবর বোধনের মাধ্যমে শুরু হবে এ ধর্মীয় উৎসব। এবং দেবী দূর্গা আগমন করবেন ঘোটকে চড়ে এবং ঘোটকে চড়ে মর্ত্যলোক থেকে বিদায় নিবেন।

এ উৎসবকে কেন্দ্র করে আনন্দ উল্লাস বয়ে যাচ্ছে হিন্দু সম্প্রদায়ের লোকালয়ে। উৎসবের আমেজে আন্দোলিত পাড়া- মহল্লা। আনন্দ উপভোগের প্রস্তুুতি নিচ্ছে আবাল বৃন্দা বর্ণিতা। দেবী দূর্গার রং তুলির কাজ চলছে পুরোদমে প্রতিটি মন্ডপে। পূজা উদযাপনে মন্ডপ ও উপজেলা কমিটির নেতৃবৃন্দ দফায় দফায় স্হানীয় প্রশাসনের সাথে মতবিনিময় সভায় মিলিত হয়ে প্রস্তুুতিমূলক কার্যাদি সম্পন্ন করেছেন। উপজেলা ও থানা প্রশাসন শান্তি পূর্ণ পরিবেশে পূজা সম্পন্ন করার জন্য সবধরণের ব্যবস্হা গ্রহণ করেছে বলে জানা গেছে।
উলেখ্য,এবারে অত্র উপজেলায় সর্বমোট পূজা মন্ডপ রয়েছে ৬টি তন্মধ্যে ফাঁসিয়াখালী ইউনিয়নে ৩টি, লামা সদর ইউনিয়নে ১টি, লামা পৌরসভায় ২টি,পূজা মন্ডপ রয়েছে। অত্র উপজেলার লামা কেন্দ্রীয় শ্রী শ্রী হরিমন্দির সর্ব্বজনীন দূর্গা পূজা উদযাপন পরিষদের সন্মানিত সভাপতি বাবু শ্রী বাবুল দাশ, সাধারণ সম্পাদক বাবু শ্রী বিজয় আইচ সাক্ষাৎকারে শান্তিপূর্ণ পরিবেশে পূজােৎসব সম্পন্ন করার জন্য সর্বশ্রণীর মানুষের আন্তরিক সহযোগীতা কামনা করেছেন। লামা কেন্দ্রীয় হরিমন্দির দূর্গা পূজা উদযাপন পরিষদে’র সন্মানিত অর্থ-সম্পাদক বাবু গোপন চৌধুরী বলেন লামা কেন্দ্রীয় দূর্গা পূজা পারিচালনা কমিটির পূজায় বিশেষ আকর্ষণ থাকছে প্রতিদিন সন্দ্যা ৭টা হতে রাত ১১টা পর্যন্ত প্রদর্শিত হবে “মেঘের গর্জন”।

স্বপন কর্মকার,লামা,(বান্দরবান) প্রতিনিধি