পাকিস্তানের পাঞ্জাবে চলন্ত ট্রেনে গ্যাস সিলিন্ডার বিস্ফোরণে নারী ও শিশুসহ অন্তত ৬৫ জনের মৃত্যু হয়েছে বলে দেশটির সংবাদমাধ্যমগুলোর খবরে বলা হয়েছে। আজ বৃহস্পতিবার করাচি থেকে রাওয়ালপিন্ডিগামী তেজগাম ট্রেনটি রহিম ইয়ারখান শহরে আসলে বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটে বলে নিশ্চিত করেছে পুলিশ।

জিও টিভির খবরে বলা হয়েছে, একজন যাত্রীর বহন করা রান্নার জন্য ব্যবহৃত গ্যাস সিলিন্ডার বিস্ফোরণে ট্রেনে ইকোনমি ক্লাসের দুটি বগি এবং বিজনেস ক্লাসের একটি বগি আগুনে পুড়ে ছাই হয়ে যায়। সংবাদমাদ্যম ডন এর খবরে বলা হয়, দমকল ও উদ্ধারকর্মীদের দল ঘটনাস্থলে গিয়ে আগুন নিয়ন্ত্রণে এনে আহতদের উদ্ধার করে। এদিকে এ ঘটনায় প্রাণহানির সংখ্যা আরও বাড়তে পারে বলেও আশঙ্কা করা হচ্ছে। পাকিস্তানের রেলওয়ে মন্ত্রী শেখ রাশিদ বলেছেন, ‘দুটি রান্নার স্টোভও বিস্ফোরিত হয়েছে। সিলিন্ডার বিস্ফোরণের সময় ওইসব স্টোভে তেল দিয়ে রান্না চলছিল, যা আগুনকে আরও চড়িয়ে দেয়।’ ‘ট্রেন থেকে লাফিয়ে পড়ে বেশিরভাগ মানুষের প্রাণহানি হয়েছে’ বলেও জানান তিনি।

মন্ত্রী বলেন, ‘ওই বগিগুলোতে তাবলিগ জামাত থেকে ফেরা যাত্রীরা ছিলেন। বগিগুলো ভয়ংকরভাবে পুড়ে গেছে এবং ট্রেন থেকে আলাদা হয়ে গেছে।’ দুই ঘণ্টা পর ট্রেন চলাচল স্বাভাবিক হবে বলেও যোগ করেন রেলওয়ে মন্ত্রী। দেশটির প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান এ ঘটনার শোক প্রকাশ করে নিহতদের পরিবারের প্রতি সমবেদনা জানিয়েছেন।সেইসঙ্গে আহতদের সর্বোচ্চ চিকিৎসাসেবা দেওয়ার নির্দেশ দিয়েছেন তিনি।