আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনাকে প্রধানমন্ত্রীর পদ থেকে সরানোর জন্য গভীর ষড়যন্ত্র চলছে বলে জানিয়েছেন দলটির সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। আজ বুধবার দুপুর ১টার দিকে চট্টগ্রামের লোহাগাড়া উপজেলার চুনতি মেহেরুন্নিছা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় মাঠে এক নাগরিক শোকসভায় তিনি এ কথা বলেন। লোহাগাড়া উপজেলা প্রশাসনের উদ্যোগে প্রধানমন্ত্রীর প্রয়াত সামরিক সচিব মেজর জেনারেল মিয়া মোহাম্মদ জয়নুল আবেদীনের শোকসভার আয়োজন করা হয়।

ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘বর্তমানে একটি গোষ্ঠী চোরাই পথে শেখ হাসিনাকে প্রধানমন্ত্রীর পদ থেকে সরানোর জন্য গভীর ষড়যন্ত্র চালিয়ে যাচ্ছে। বিগত নির্বাচনে যারা বিপুল ভোটে পরাজিত হয়েছে তারাই এই ষড়যন্ত্রের নীল নকশা আকঁছে। ‘

‘এই কঠিন সময়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার পাশে প্রয়াত মেজর জেনারেল আবেদিনের মতো সার্বক্ষণিক একজন বিশ্বস্ত, দক্ষ, সাহসী ও বিচক্ষণ মানুষের প্রয়োজন। প্রধানমন্ত্রী বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনা এটি অনুভব করছেন।’

জেনারেল আবেদীনের স্বপ্নগুলো বাস্তবায়ন করা হবে জানিয়ে তিনি বলেন, ‘লোহাগাড়ার চুনতি এলাকায় মেজর জেনারেল আবেদীনের স্বপ্নগুলো একে একে সব বাস্তবায়ন করা হবে। আবেদীনের পরিবার ও স্বপ্ন বাস্তবায়নের দায়িত্ব প্রধানমন্ত্রী নিজেই নিয়েছেন। বিশেষ বিবেচনায় প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে বীরবিক্রম জয়নুল আবেদীন উচ্চ বিদ্যালয়ের এমপিও ভুক্তি করা হবে।’

মেজর জেনারেল জয়নুল আবেদীনের বড়ভাই মো. ইসমাঈল মানিকের সভাপতিত্বে ও উপজেলা র্নিবাহী অফিসার তৌছিফ আহমেদের সঞ্চালনায় নাগরিক শোকসভায় বক্তব্য দেন, চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও চট্টগ্রাম-৮ আসনের সংসদ সদস্য মোছলেম উদ্দিন আহমেদ, চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের মেয়র ও চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আ জ ম নাছির উদ্দিন, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের অর্থ ও পরিকল্পনা সম্পাদক ওয়াসিকা আয়েশা খাঁন, তথ্য ও গবেষণা সম্পাদক ড. সেলিম মাহমুদ।

শোকসভায় আরও বক্তব্য দেন, আওয়ামী লীগের দপ্তর সম্পাদক ও প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ সহকারী ব্যারিস্টার বিপ্লব বড়ুয়া, উপপ্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক আমিনুল ইসলাম আমিন, কক্সবাজার উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যান লে. কর্নেল (অব.) ফোরকান আহমদ, প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের সাবেক (সিনিয়র) সচিব সাজ্জাদুল হাসান, চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মফিজুর রহমান, প্রধানমন্ত্রীর উপপ্রেস সচিব আশরাফুল আলম খোকন ও সুচিন্তা ফাউন্ডেশন বাংলাদেশের চেয়ারম্যান অধ্যাপক এ আরফাত।