গাজীপুরের শ্রীপুরে বেফাকুল মাদারিসিল আরাবিয়া বাংলাদেশের চেয়ারম্যান আল্লামা শাহ আহমাদ শফি সকলকে মুরীদ হওয়ার আহবান জানিয়েছেন। তিনি বাংলাদেশ কওমী মাদরাসা শিক্ষা বোর্ড শ্রীপুর উপজেলার শাখার আয়োজনে পুরষ্কার বিতরণী ও দস্তারবন্দী মহাসম্মেলনে প্রধান মেহমান হিসেবে উপস্থিত ছিলেন। বৃহষ্পতিবার বিকেলে শ্রীপুর পাইলট সরকারি উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে এ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়।

আহমাদ শফি তার বক্তব্যে বলেন, ইসলামের চারটি মাযহাবের ইমামগণের পীর ছিল। তাহলে আপনাদেরকেও মুরীদ হতে হবে। আমি নিজেও মুরীদ হয়েছি এবং আমারও পীর আছেন। এখানে (সম্মেলন স্থলে) আমার খলীফাও রয়েছেন। আমাদের মাযহাবের ইমাম হলেন ইমাম আবু হানিফা। তাঁর পীর ছিলেন ইমাম জাফর সাদেক (রঃ)। যেহেতু বিভিন্ন মাযহাবের ইমামদের পীর ছিলেন এবং তাদের চাইতে আমাদের মর্যাদা বড় নয় সেহেতু আপনাদেরকেও মুরীদ হতে হবে।

তিনি আহলে বাইয়াতের গুরুত্ত্ব ব্যাখা করে উপস্থিত সকলকে তার কাছে মুরীদ হওয়ার আহবান জানান। পরে তার সঙ্গে তওবা ইস্তেগফার পড়তে বলে সকলকে মুরীদ করেন ও তাসবীহ তাহলিম করার নিয়ম কানুন শিখিয়ে দেন।

এর আগে বেফাকুল মাদারিসিল আরাবিয়া কেন্দ্রীয় কমিটির কার্যনির্বাহী সদস্য হযরত মাওলানা আশেকে মোস্তফার সভাপতিত্বে সম্মেলনে প্রধান অতিথি ছিলেন গাজীপুর-৩ আসনের সাংসদ ও জেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক মুহাম্মদ ইকবাল হোসেন সবুজ। শ্রীপুর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট শামসুল আলম প্রধান, শ্রীপুর পৌরসভার মেয়র আনিছুর রহমানসহ রাজনৈতিক ব্যাক্তি ও বিভিন্ন কওমী মাদরাসার শিক্ষক-শিক্ষার্থীবৃন্দ। সম্মেলনে শ্রীপুর উপজেলার বিভিন্ন কওমী মাদ্রাসা শিক্ষা বোর্ডের ১২তম বার্ষিক পরীক্ষায় কৃতি শিক্ষার্থীদের মধ্যে পুরষ্কার বিতরণ করা হয়।