করোনাভাইরাস সংক্রমণ রোধে সৌদি আরবজুড়ে চলছে কারফিউ ও লকডাউন। ইতোমধ্যে দেশটির সরকার সৌদি নাগরিকদের পাশাপাশি বিভিন্ন দেশের প্রবাসীদের জীবন-জীবিকার নিরাপত্তা নিশ্চিতে সব ধরনের ব্যবস্থা নিয়েছে। সরকারি চাকরিজীবীদের পাশাপাশি দেশটিতে কর্মরত প্রায় ১২ লাখ বেসরকারি চাকরিজীবী ও প্রবাসী শ্রমিকদেরও বেতন দেবে সরকার।

করোনা মহামারির কারণে ক্ষতিগ্রস্ত কোম্পানিগুলোতে নিয়োজিত কর্মীদের বেতনের ৬০ শতাংশই সরকারের কোষাগার থেকে পরিশোধ করার ঘোষণা দেওয়া হয়েছে। আগামী তিন মাস এই বিশেষ সহায়তা দেওয়া হবে।

মহামারির আর্থিক প্রভাব কমাতে সৌদি সরকারের নেওয়া সবচেয়ে বড় দুটি অর্থনৈতিক প্যাকেজের এটি একটি। এ জন্য বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে ২৬০ কোটি মার্কিন ডলার। এতে বেসরকারি খাতের অন্তত ১২ লাখ কর্মী উপকৃত হবেন। সেই সঙ্গে বেঁচে যাবে কোম্পানিগুলোও। কর্মী ছাঁটাইয়েরও প্রয়োজন হবে না।

সৌদির রাষ্ট্রীয় সংবাদমাধ্যম প্রেস এজেন্সি জানিয়েছে, করোনাভাইরাসের কারণে কোনো কর্মীকে যেন ছাঁটাই করা না হয়, সে জন্য বাদশাহ সালমান বিন আবদুল আজিজ বিশাল এই আর্থিক প্যাকেজের ঘোষণা দেন।

খবরে বলা হয়েছে, যেসব প্রতিষ্ঠান তাদের কর্মীদের ছুটি দিতে বাধ্য হয়েছে, তারা এই প্যাকেজ সহায়তার জন্য আবেদন করতে পারবে। আগামী তিন মাসের জন্য কর্মীদের বেতনের ৬০ শতাংশ সরকার পরিশোধ করবে। একজন কর্মীর জন্য এ প্রণোদনার পরিমাণ তিন মাসে সর্বোচ্চ ৯ হাজার সৌদি রিয়াল, বাংলাদেশি মুদ্রায় প্রায় ২ লাখ ৪৬ হাজার টাকা।