করোনাভাইরাসে ইতোমধ্যেই দেশে কমিউনিটি ট্রান্সমিশন হয়ে গেছে বলে জানিয়েছেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক। আজ সোমবার দুপুরে করোনা পরিস্থিতি নিয়ে অনলাইনে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের দৈনন্দিন স্বাস্থ্য বুলেটিনে তিনি এ তথ্য জানিয়েছেন। স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, ঢাকা, নারায়ণগঞ্জ, মিরপুর, বাসাবো এবং আরও কয়েকটি এলাকা বেশি সংক্রমিত হয়েছে। রোববার সারা বাংলাদেশের মেডিকেল কলেজগুলোর পরিচালকদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে যেসব জেলায় সংক্রমিত হয়েছে সেসব এলাকায় বিশেষভাবে ঢাকা ও নারায়ণগঞ্জ থেকে মানুষ গিয়েছে। এ বিষয়ে আমাদের আরও কঠোর পদক্ষেপ নিতে হবে।

তিনি বলেন, লকডাউন জোরদার করতে হবে। বিশেষ করে ওই এলাকাগুলো। প্রতিদিনই আমাদের লকডাউনের কার্যক্রম চলছে। প্রধানমন্ত্রী প্রতিদিন আমাদের নির্দেশনা দিচ্ছেন। তিনি নিজেও ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে দেশবাসীকে অবহিত করছেন। উনার নির্দেশনাতেই আমরা কাজ করে যাচ্ছি।

স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, আমরা লক্ষ্য করছি যে, এখনও মানুষ লকডাউন পুরোপুরি মেনে চলছে না। আমরা দেখি, বাজারে অনেকে জটলা পাকিয়ে আছেন, অযথা ঘোরাফেরা করছেন। এ বিষয়টি পরিহার করতে হবে। কারণ, যেখানে বাইরে ঘোরাফেরা করবে, সেখানেই সংক্রমিত হবে। আমাদের ইতোমধ্যেই কমিউনিটি ট্রান্সমিশন (সামাজিকভাবে ছড়িয়ে পড়া) হয়ে গেছে।

তিনি বলেন, আমাদেরকে বুঝতে হবে যে হাসপাতালে লাখ লাখ লোকের চিকিৎসা কোনও দেশই দিতে পারে না। আমাদেরকে সেদিকে লক্ষ্য রাখতে হবে। আমাদের কোভিড-১৯ মোকাবিলার যে মূল অস্ত্র, সেটা হলো ঘরে থাকা এবং ঘরে থাকা এবং পরীক্ষা করা, যার মাধ্যমে যারা সংক্রামিত রয়েছে তারা চিহ্নিত হবে এবং তাদেরকে আইসোলেশনে রাখা যাবে।