বুধবার জ্বর নিয়ে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি হয় এক স্কুলছাত্র। করোনা ধরা পড়ায় বৃহস্পতিবার (১৬ এপ্রিল) তাকে কুয়েত-মৈত্রী হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। স্ট্রেচারে করে তাকে এ্যাম্বুলেন্সে তোলার কথা থাকলেও কেউই এগিয়ে আসেননি সাহায্যে। উপায় না দেখে শিশুটির বাবা তাকে কোলে করে অ্যাম্বুলেন্সে তোলেন।

করোনাভাইরাসে আক্রান্তদের চিকিৎসা সমন্বয়ে মারাত্মক ঘাটতি দেখা দিয়েছে। বিভিন্ন হাসপাতালে ভর্তি কোভিড-১৯ আক্রান্ত রোগীরা ন্যূনতম চিকিৎসা পাচ্ছেন না। এসব রোগীর চিকিৎসায় নিবেদিত হাসপাতালগুলোয় যে চিকিৎসকদের বদলি বা পদায়ন করা হয়েছে, তাদের অনেকে যোগদান না-করে নিজ কর্মস্থলে অবস্থান করছেন। আবার যে সামান্য কয়েকজন চিকিৎসক রোগীদের সেবা দিচ্ছেন, তাদের প্রশাসনিকভাবে হয়রানি করা হচ্ছে। শুধু সমন্বয়হীনতার কারণেই এসব ঘটনা ঘটছে; কিন্তু এর দায়িত্ব কেউ নিচ্ছেন না। প্রসঙ্গত, করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে আরও ১৫ জনের মৃত্যু হয়েছে। এ নিয়ে মৃতের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ৭৫ জন। এছাড়া শুক্রবার সকাল পর্যন্ত নতুন করে আরও ২৬৬ জন করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছে। আক্রান্তের মোট সংখ্যা বেড়ে ১৮৩৮ জন হয়েছে।

ছবি: রুবেল রশীদ/দেশ রুপান্তর