শের-ই বাংলা মেডিক্যাল কলেজ (শেবাচিম) হাসপাতালের বার্ন ও প্লাস্টিক সার্জারি বিভাগের চিকিৎসক ডা. এমএ আজাদ সজলের মরদেহ উদ্ধারের ঘটনায় জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ৯ জনকে হেফাজতে নিয়েছে পুলিশ।

কোতয়ালী মডেল থানার সহকারী কমিশনার (এসি) মো. রাসেল এই তথ্য নিশ্চিত করেছেন। তিনি জানান, মমতা স্পেশালাইজড হাসপাতালের বিভিন্ন পদে কর্মরত ৯ জনকে প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদের জন্য থানায় আনা হয়েছে।

প্রসঙ্গত, আজ মঙ্গলবার সকালে নগরীর কালিবাড়ি রোডের ওই হাসপাতালের লিফটের নিচ থেকে ডা. সজলের মরদেহ উদ্ধার করা হয়। ওই চিকিৎসক শেবাচিম হাসপাতালে চাকরির পাশাপাশি মমতা স্পেশালাইজড হাসপাতালে প্রাইভেট প্র্যাকটিস করতেন। তিনি বেসরকারি ওই ক্লিনিকের সপ্তম তলার একটি কক্ষে বসবাস করতেন। তার স্ত্রী কহিনুর বেগম ঢাকার কেরানিগঞ্জে দুই ছেলে-মেয়ে নিয়ে বসবাস করেন। ডা. সজল পিরোজপুরের স্বরূপকাঠী উপজেলার সোহাগদল এলাকার বাসিন্দা।