নওগাঁর রাণীনগরে বিভিন্ন সময়ে পরিচয়দানকারী আকমল আলী (৫০) নামে ভূয়া পুলিশ কর্মকর্তাকে গ্রেফতার করেছে থানা পুলিশ। গ্রেফতাকৃত আকমলের বিরুদ্ধে দেশের বিভিন্ন থানায় ভুয়া উর্দ্ধতন কর্মকর্তা সেজে চাঁদাবাজির একাধিক মামলা রয়েছে। সেই মামলার প্রেক্ষিতে রাণীনগর থানা পুলিশ তাকে গ্রেফতার করে। গ্রেফতারকৃত আকমল সিরাজগঞ্জ জেলার চৌহালি থানার চরকাঠালি গ্রামের মৃত-ইউসুফ আলীর ছেলে।
পুলিশ সূত্রে জানা, আকমল দীর্ঘদিন যাবত জেলার সদর উপজেলার চন্ডিপুরগ্রামে শ্বশুড়বাড়িতে বসবাস করে এবং ছদ্মবেশে রাণীনগর বাজারের বটতলী মোড়ে কাপড়ের ব্যবসা করতো। এই ব্যবসার আড়ালেই তার সহযোগিদের মাধ্যমে দীর্ঘদিন যাবত এই কার্মকান্ড চালিয়ে আসছিলো। আকমল তার দলীয় লোকজনের সহযোগিতায় মোবাইল ফোনের মাধ্যমে বিভিন্ন সময়ে বিভিন্ন দপ্তরের ভুয়া সচিব, পুলিশের এসপি, ডিসি, ইউএনওসহ উর্দ্ধতন কর্মকর্তার পরিচয়ে বিভিন্ন ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠানের প্রধানের কাজ থেকে লাখ লাখ টাকা চাঁদা আদায়ের কারবার করতো। তার বিরুদ্ধে দেশের বিভিন্ন থানায় এই অভিনব কায়দায় চাঁদাবাজির অভিযোগে মামলা রয়েছে। রাণীনগর থানা পুলিশ গোপন সংবাদের ভিত্তিতে তার মোবাইল ফোন ট্যাগ করে শুক্রবার রাতে রাণীনগর বাজার এলাকা থেকে তাকে গ্রেফতার করে।

রাণীনগর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা জহুরুল হক বলেন, তাকে গ্রেফতার করে থানায় প্রাথমিক জিজ্ঞাবাদে তার কিছু সহযোগির সন্ধান পাওয়া গেছে। তাদেরকেও আটক করার চেষ্টা চলছে। এছাড়াও তার কাছ থেকে ৬টি বিভিন্ন ব্যান্ডের মোবাইল ফোন ও ৭টি সিম কার্ড পাওয়া গেছে। গ্রেফতারকৃত আকমলের বিরুদ্ধে যেসব থানায় মামলা রয়েছে সেই সব থানা কর্তৃপক্ষের কাছে তাকে হস্তান্তর করা হবে।