গাজীপুরের কাপাসিয়ায় পূর্ব বিরোধের জেরে প্রতিপক্ষের হামলায় নারীসহ ৫ জন আহত হয়েছেন। গত এক সপ্তাহেও ঘটনার সঙ্গে জড়িতদের গ্রেফতার করতে পারেনি পুলিশ। হামলাকারীদের হুমকির প্রেক্ষিতে হুমকির প্রেক্ষিতে নিরাপত্তহীনতার মাঝে পরিবারের সদস্যদের নিয়ে দিন কাটাচ্ছেন আহতরা।

অভিযোগে জানা যায়, কাপাসিয়া উপজেলার তরগাঁও লাহুরী গ্রামের রফিজ উদ্দিনের সঙ্গে প্রতিবেশী ওবায়দুল কাদের ওরফে এবায়দুল্লাহর বেশ কিছুদিন ধরে জমি ও বিভিন্ন বিষয়াদি নিয়ে বিরোধ চলে আসছে। এর জেরে গত ২৩ মে ওবায়দুল কাদের ওরফে এবায়দুল্লাহর নেতৃত্বে ৯-১০ জন মিলে ধারালো অস্ত্র ও লাঠিসোটা নিয়ে হামলা রফিজ উদ্দিনের বাড়িতে হামলা চালায়। হামলাকারীরা এসময় বাড়ির লোকজনকে লাঠিসোটা দিয়ে মারধর করে এবং ধারালো অস্ত্র দিয়ে এলোপাথাড়ি কুপিয়ে ৫জনকে আহত করে। গুরুতর আহত রফিজ উদ্দিন (৫৫), জহিরুল ইসলাম (২৪), সবুজ (৩৮), সাইফুল ইসলাম (৩৬) ও জহুরা বেগমকে (৪৫) উদ্ধার করে কাপাসিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়। এ ঘটনায় আহত রফিজ উদ্দিনের ছেলে রুহুল আমিন বাদী হয়ে কাপাসিয়া থানায় একটি মামলা দায়ের করেছেন।

মামলার বাদী জানান, মামলার দায়েরের এক সপ্তাহ পরও আসামীরা প্রকাশ্যে ঘুরে বেড়ালেও কেউ গ্রেফতার হয়নি। বরং প্রভাবশালী মহলের ছত্রচ্ছায়ায় থেকে মামলা প্রত্যাহারের জন্য তারা আহতদেরকে স্বপরিবারে খুন, জখম ও এলাকাছাড়া করাসহ নানা ধরনের হুমকি দিচ্ছে। এতে নিরাপত্তহীনতার মাঝে পরিবারের সদস্যদের নিয়ে দিন কাটাচ্ছেন আহতরা।

এব্যপারে কাপাসিয়া থানার ওসি রফিকুল ইসলাম জানান, ঘটনার তদন্ত চলছে। এ ঘটনায় জড়িতদের গ্রেফতারের জন্য পুলিশ বিভিন্নস্থানে অভিযান চালিয়েছে।