নীলফামারীর ডিমলা উপজেলার বালাপাড়া ইউনিয়নের দক্ষিন সুন্দরখাতা ডিমলা টু ডোমার বাইপাস সড়ক সংলগ্ন ফরেস্ট বাগানের(বনবিভাগ)রাস্তার পাশে ফেলে রাখা তালাবদ্ধ রহস্যজনক ট্রাংক থেকে অজ্ঞাত এক যুবকের(আনুমানিক ৪০)লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ।বৃহস্পতিবার(১৬ জুলাই)দুপুরে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা রহস্যজনক ট্রাংকটির তালা ভেঙ্গে ফেললে ট্রাংকটির ভিতরে কাপড়ে মোড়ানো অর্ধগলিত পঁচা দুর্গন্ধযুক্ত একটি অজ্ঞাত লাশ পাওয়াা যায়।ধারনা করা হচ্ছে মৃতদেহটি তিন থেকে চারদিন ও তারও পুর্বের হতে পারে।

এলাকাবাসী সুত্রে ও সরেজমিনে জানা গেছে,গত বুধবার(১৫ জুলাই)রাত প্রায় ১২টার সময় সংলগ্ন এলাকার শৈল্যারঘাট গ্রামের এক বাসিন্দা বাড়ি ফেরার পথে উল্লেখিত স্থানের পাকা সড়কের পাশে স্বাভাবিক ভাবে নামিয়ে রাখা একটি তালাবদ্ধ ট্রাংক দেখতে পেয়ে প্রতিবেশিদের জানালে তারা থানা পুলিশকে বিষয়টি অবগত করেন।খবর পেয়ে রাতেই থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌছে মাঝারি সাইজের একটি ব্যবহৃত ট্রাংকে দুটি নতুন তালা লাগানো অবস্থায় রহস্যজনক ট্রাংকটি দেখতে পেয়ে ঘটনাস্থল ঘিরে রাখেন।ফেলে রাখা ট্রাংকটির পাশে যানবাহনের চাকার দাগ থাকায় পুলিশ ও স্থানীয়দের ধারনা অন্য এলাকা থেকে মৃতদেহটি ট্রাংকের ভিতরে তালাবদ্ধ অবস্থায় যানবাহনে করে পরিকল্পিত ভাবে রাতের আধারে ডিমলা ফরেস্টের(বনবিভাগের)ওই নির্জন এলাকায় ফেলে রেখে যাওয়া হয়েছে।

বৃহস্পতিবার দুপুরে মৃতদেহটির আলামত সংগ্রহ সহ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন নীলফামারী পুলিশ সুপার(এসপি) মোহাম্মদ মোখলেছুর রহমান(বিপিএম-পিপিএম),সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার(ডোমার-ডিমলা সার্কেল)জয়ব্রত পাল,সিআইডির ক্রাইম সীন ইউনিট,পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন(পিবিআই),গোয়েন্দা শাখা(ডিবি)পুলিশ নীলফামারী,ডিমলা থানার ওসি মফিজ উদ্দিন শেখ প্রমুখ।বিকেলে মৃতদেহটির ময়না তদন্তের জন্য তা উদ্ধার করে ডিমলা থানায় নেয়া হয়।ডিমলা থানার ওসি মফিজ উদ্দিন শেখ ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন,রাতে খবর পেয়ে ঊর্ধ্বতন কর্তপক্ষকে বিষয়টি অবগত করি।স্যারেরা সহ সিআইডি,পিবিআই,ডিবি পুলিশ,বৃহস্পতিবার ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন।মৃতদেহটি ময়না তদন্ত ও মামলার প্রস্ততি চলছে।নীলফামারী পুলিশ সুপার মোহাম্মদ মোখলেছুর রহমান(বিপিএম-পিপিএম)বলেন,লাশের প্রাথমিক সুরতহাল প্রস্তুত করা হয়েছে।ধারনা করা হচ্ছে লাশটি ২/৩ দিন পুর্বের এবং ড্রপ পয়েন্ট হিসেবে সেখানে(ফরেস্টে)তা তালাবদ্ধ ট্রাংকে করে ফেলে রাখা হয়েছে।আমরা আশা করছি শীঘ্রই লাশ সনাক্ত সহ ঘটনার মুল রহস্য উদ্ঘাটন করতে পারব।

সুজন মহিনুল,বিশেষ প্রতিনিধি॥