পাবনার ভাঙ্গুড়ায় ১০০ পিস ইয়াবা ট্যাবলেটসহ ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক এক জনপ্রতিনিধি জহুরুল ইসলাম (৪৫) ও তার সহযোগী আব্দুর রহমানকে (৫০) আটক করেছে পুলিশ। তারা দুজনেই এলাকার শীর্ষ মাদক ব্যবসায়ী বলে পুলিশ দাবী করছে।

পুলিশ ও স্থানীয়রা জানান, শনিবার দুপুরে উপজেলার খানমরিচ ইউনিয়নের শ্রীপুর বাজার থেকে তাদেরকে আটক করা হয়। জহুরুল ইসলাম ওই ইউনিয়নের ৭ নং ওয়ার্ডের সাবেক ইউপি সদস্য ও জয়রামপুর গ্রামের আয়নাল হকের ছেলে। আটক অপর ব্যক্তি আব্দুর রহমান একই গ্রামের আহমদ আলীর ছেলে। দুজনেই একাধিক মাদক মামলার আসামি।

সূত্র আরও জানায়, মাদক ব্যবসায়ী জহুরুল ইসলাম ও আবদুর রহমান চলনবিল অধ্যুষিত প্রত্যন্ত খানমরিচ ইউনিয়নের শ্রীপুর বাজারে ইয়াবা ট্যাবলেট বিক্রি করছে-এমন সংবাদ পায় ভাঙ্গুড়া থানা পুলিশ। এরপর থানা পুলিশের একটি বিশেষ টিম অভিযান চালায় ওই বাজারে। এ সময় হাতেনাতে ১০০ পিস ইয়াবা ট্যাবলেটসহ ওই দুই শীর্ষ মাদক ব্যবসায়ীকে আটক করে পুলিশ। তবে প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, পুলিশ আসার আগেই ওই দুই মাদক ব্যবসায়ী বেশ কয়েকজন মাদকসেবীর কাছে ইয়াবা বিক্রি করে। তারা আরো জানায়, আটক দুই ব্যক্তি দীর্ঘদিন ধরে খানমরিচ ইউনিয়নের বিভিন্ন গ্রামে ইয়াবা সহ বিভিন্ন ধরনের মাদকদ্রব্য পাচার ও বিক্রি করে আসছে। এ কারণে জহুরুল ও আব্দুর রহমান পুলিশের হাতে ধরা পড়ে এর আগেও জেল খেটেছেন। কিন্তু জেল থেকে ছাড়া পেয়ে এলাকায় ফিরে আবারও মাদক ব্যবসা শুরু করেন তারা। শনিবার এদের আবারো আটকের খবরে এলাকায় কিছুটা হলেও স্বস্তি এসেছে।

ভাঙ্গুড়া থানার ডিউটি অফিসার এসআই (উপ-পরিদর্শক) মোদাচ্ছের হোসেন ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, আটক ব্যক্তিরা শীর্ষ মাদক কারবারি ও একাধিক মাদক মামলার আসামি। উভয় ব্যক্তির বিরুদ্ধে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে মামলা দায়ের করে আদালতের মাধ্যমে জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে।