গোপালগঞ্জের মুকসুদপুর উপজেলায় বাস ও মোটরসাইকেলের সংঘর্ষের ঘটনায় তিন যুবক নিহত হয়েছেন। উপজেলার কলেজ মোড় এলাকায় ঢাকা-খুলনা মহাসড়কে গতকাল শুক্রবার রাতে এ দুর্ঘটনা ঘটে।নিহত ব্যক্তিরা হলেন মুকসুদপুর উপজেলার চান্ডিবর্দি গ্রামের আনু সরদারের ছেলে ইতালি প্রবাসী ফয়সাল সরদার (২৭), সুন্দরদী গ্রামের বিল্লাল ঠাকুরের ছেলে কলেজছাত্র আল আমিন ঠাকুর (২৫) ও লখাইড়চর গ্রামের শফি মিয়ার ছেলে ব্যবসায়ী লিয়াকত মিয়া (৩০)।

মুকসুদপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শাকের মোহাম্মদ জুবায়ের জানান, গতকাল শুক্রবার রাতে একটি মোটরসাইকেলে করে ফয়সাল সরদার, আল আমিন ঠাকুর ও লিয়াকত মিয়া নামের তিন যুবক মুকসুদপুর ফিলিং স্টেশনের দিকে যাচ্ছিলেন। পথে মুকসুদপুর কলেজ মোড় এলাকায় ঢাকাগামী গোল্ডেনলাইনের একটি নৈশকোচের সঙ্গে মোটরসাইকেলটির মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। এ সময় মোটরসাইকেলটি বাসটির নিচে ঢুকে যায়। এতে মোটরসাইকেলসহ তিন আরোহী বাসের সামনের অংশে আটকে যান এবং আধা কিলোমিটার দূরে গিয়ে ছিটকে পড়েন। এই তিনজনের মধ্যে আল আমিন ঠাকুর ঘটনাস্থলেই মারা যান, মুকসুদপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেওয়ার পর মৃত্যু হয় ফয়সালের এবং উন্নত চিকিৎসার জন্য ফরিদপুর নেওয়ার পথে মারা যান লিয়াকত।

এদিকে, দুর্ঘটনার সময় বাসটি ঘটনাস্থল থেকে দেড় কিলোমিটার অতিক্রম করার পর মোটরসাইকেলটিতে আগুন লেগে যায়। পরে সে আগুন বাসে ছড়িয়ে পড়ে। তবে যাত্রীরা নিরাপদে বাস থেকে নেমে যান। বাসের কোনো যাত্রী হতাহত হননি বলে জানা গেছে। খবর পেয়ে মুকসুদপুর ফায়ার সার্ভিসের একটি ইউনিট দ্রুত ঘটনাস্থলে গিয়ে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে। তবে বাসের ভেতরের অংশ পুড়ে গেছে।

ওসি শাকের মোহাম্মদ আরো জানান, ভাঙ্গা হাইওয়ে থানা পুলিশ নিহত ব্যক্তিদের লাশ উদ্ধার করে পরিবারের কাছে হস্তান্তর করেছে।