লালমনিরহাটের কালীগঞ্জ উপজেলায় ধানক্ষেত থেকে শাহাদাত হোসেন (২০) নামের এক ইজিবাইক চালকের গলাকাটা লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। এ ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগে ইজিবাইকসহ দুজনকে আটক করেছে পুলিশ।
মঙ্গলবার (২২ সেপ্টেম্বর) রাত সাড়ে ৯টার দিকে উপজেলার মদাতী ইউনিয়নের কাগজীটারি এলাকার নিপানিয়ার দোলার ধানক্ষেত থেকে তার গলাকাটা লাশ উদ্ধার করা হয়।
নিহত শাহাদাত ঐ ইউনিয়নের ৭ নং ওয়ার্ডের খালিশা মদাতী এলাকার লোকমান হোসেনের ছেলে।
আটককৃত দুইজন হলেন, ঐ উপজেলার মদাতী ইউনিয়নের খালিশা মদাতী এলাকার আজিজার রহমানের ছেলে সুজন ও কিসামত মদাতী গ্রামের আমিরুল হকের ছেলে শামীম।

নিহতের পরিবার ও পুলিশ সুত্রে জানা যায়, গতকাল সোমবার বিকালের দিকে ইজিবাইক নিয়ে বের হয়ে আর বাড়ি ফিরে আসেনি শাহাদাত। অনেক খোঁজাখুজির পর শাহাদাতের কোন সন্ধান না পেয়ে মঙ্গলবার সকালে কালীগঞ্জ থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন নিহত শাহাদাতের পিতা লোকমান হোসেন।
পরে তাদের দেয়া তথ্যের ভিত্তিতে মঙ্গলবার বিকালে উপজেলার খালিশা মদাতী এলাকায় নিজ বাড়ি থেকে আজিজার রহমানের ছেলে সুজন (২৩) কে আটক করা হয়। এরপর সুজনের তথ্যের ভিত্তিতে একদিকে কালীগঞ্জ থানার পুলিশ মদাতী ইউনিয়নের কাগজীটারি এলাকার নিপানিয়ার দোলার ধানক্ষেত থেকে শাহাদাতের গলাকাটা লাশ উদ্ধার করা করে। এবং অপরদিকে সন্ধ্যায় লালমনিরহাট রেল স্টেশন এলাকা থেকে একটি ইজিবাইকসহ শামীম (২৪) কে আটক করে সদর থানার এস,আই আসাদ।
লালমনিরহাট সদর থানার এসআই আসাদ জানান, শামীমকে জিজ্ঞাসাবাদের পরেই ঘটনার বিস্তারিত জানা যাবে।
কালীগঞ্জ থানার ওসি আরজু মোঃ সাজ্জাদ হোসেন জানান, মরদেহের শরীরে আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। আর শামীমসহ সে এ হত্যাকান্ডে জড়িত বলে প্রাথমিকভাবে জানিয়েছে সুজন।

তবে এটি ইজিবাইক ছিন্তাইকালে হত্যা নাকি অন্য কোনো কারণে এ হত্যাকান্ড ঘটানো হয়েছে তাৎক্ষনিকভাবে তা জানাতে পারেনি পুলিশ।