গাজীপুর সিটি কর্পোরেশনের মেয়র ও মহানগর আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট মোহাম্মদ জাহাঙ্গীর আলম বলেছেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান আমাদেরকে স্বাধীনতা এনে দিয়েছেন। বঙ্গবন্ধুর স্বাধীন এ দেশে সকল ধর্মের মানুষ পাশাপাশি থেকে স্বাধীনভাবে চলাফেরা করছে। ধর্ম হচ্ছে নিজস্ব বিশ্বাস, নিজস্ব অস্তিত্ব। যার যার অবস্থান থেকে যতোটা সম্ভব এটাকে সমুন্বত এবং শান্তিপূর্ণ পরিবেশ বজায় রাখতে হবে। স্বাধীন এই দেশে ধর্ম নিয়ে কেউ যাতে দাঙ্গা করতে না পারে, সকল ধর্মের মানুষ যাতে নিজেদের জন্মভ’মি এই বাংলাদেশে স্বাধীন ও শান্তিপূর্ণ পরিবেশে বসবাস ও চলাফেরা করতে পারে সেদিকে সবাইকে লক্ষ্য রাখতে হবে। তিনি বলেন, ধর্ম যার যার, উৎসব সবার। তাই শারদীয় দূর্গোৎসব উদযাপনে সহায়তা করার দায়িত্ব আমাদের সবার।

তিনি বুধবার গাজীপুর সিটি কর্পোরেশন কার্যালয়ের মিলনায়তনে উপস্থিত মহানগর এলাকার পূজা উদযাপন কমিটির নেতৃবৃন্দের সঙ্গে মতবিনিময়কালে এসব কথা বলেন। অনুষ্ঠানে তিনি গাজীপুর মহানগরের ১৪৪ টি পূজামন্ডপের প্রতিটিতে ৩০ হাজার টাকা করে নগদ অর্থ ও চেক সহায়তা প্রদান করেন। এসময় গাজীপুর মহানগর আওয়ামী লীগ নেতা আব্দুর রউফ নয়ন, অ্যাডভোকেট আমজাদ হোসেন বাবুল, জেলা যুবলীগের আহবায়ক আলতাব হোসেন, পূজা উদযাপন কমিটির সভাপতি অরুন সাহা ও সাধারণ সম্পাদক নারায়ন দাস, মানিক চন্দ্র দেসহ বিভিন্ন ওয়ার্ডের কাউন্সিলর ও নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

মেয়র জাহাঙ্গীর আলম সম্প্রতি সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে প্রচার হওয়া একটি অডিওতে কিছু মন্তব্যসহ বক্তব্যটি নিজের নয় বলে আবারো দাবী করে বলেন, এটা আমার বিরুদ্ধে একটি ডিজিটাল ষড়যন্ত্র। প্রযুক্তিগত কৌশল খাটিয়ে ‘সুপার এডিট’ করে আমার কণ্ঠ নকল করে এ অডিও করা হয়েছে। জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু হলেন আমার অস্তিত্ব। ছোটবেলা থেকেই জাতির পিতার আদর্শকে ধারণ করেই আমি ছাত্রলীগ ও আওয়ামীলীগ করছি। অছত আমাকে ফাঁসাতে ও প্রশ্নবিদ্ধ করতে ষড়যন্ত্রকারীরা এ কাজগুলো শুরু করেছে। মিথ্যা প্রচারণা দিয়ে তারা বিভ্রান্ত করার চেষ্টা করছে। একটি স্বার্থান্বেসী মহল গাজীপুর সিটি কর্পোরেশনের উন্নয়ন কাজকে বাঁধাগ্রস্থ করার জন্য এসব ষড়যন্ত্র করেছে। আমি কোন ভুল করে থাকলে সে ব্যাপারে ব্যবস্থা নিবেন আমার অভিভাবক প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি ও মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী অ্যাডভোকেট আকম মোজাম্মেল হক। অথচ প্রধানমন্ত্রী ও জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি এবং আমি যখন দেশের বাইরে ছিলাম, সেই সুযোগে ওই মহলটি এসব অপপ্রচার চালিয়ে অস্থিতিশীল পরিবেশ তৈরী করতে রাস্তায় টায়ার পুড়িয়েছে। কোন বিবেকবান মানুষ এটা করতে পারে না। আল্লাহ এর বিচার করবেন। অন্ধকার থেকে সত্য একদিন বেরিয়ে আসবেই।

গাসিক মেয়র মোহাম্মদ জাহাঙ্গীর বলেন, আমি দুর্নীতি করি না, দুর্নীতিকে প্রশ্রয়ও দেই না। এতে একটি মহল ক্ষুব্ধ হয়ে আমার বিরুদ্ধে আমার বিরুদ্ধে নানা অপপ্রচারে নেমেছে। আমি গাজীপুর সিটি কর্পোরেশনের মেয়র পদে নির্বাচিত হয়ে যখন দায়িত্ব গ্রহণ করি তখন এ সিটি কর্পোরেশন ২৪০ কোটি টাকা ঋণ গ্রস্থ ছিল। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সহায়তায় সে অবস্থা কাটিয়ে আমি গত দুই অর্থ বছরে প্রায় ২২ হাজার কোটি টাকার বাজেট ঘোষণা করি। মহানগরীর মানুষের দূর্ভোগের কথা চিন্তা করে স্বাধীনভাবে তাদের চলাচলের সুবিধার জন্য গত তিন বছর দিনরাত পরিশ্রম করে প্রায় ৮শ’ কিলোমিটার রাস্তা নির্মাণ করেছি। গাজীপুর শহরকে একটি সুন্দর ও উন্নত আধুনিক শহরে পরিনত করতে দিন রাত কাজ করে চলেছি। দশ বছরের কাজ ৫ বছরে সম্পন্ন করতে একযোগে দিনে রাতে চলছে নানা উন্নয়ন কাজ। এতে অবৈধ সুবিধা না পেয়ে ঈর্ষান্বিত হয়েছে একটি মহল। তারা এখন আমার বিরুদ্ধে চক্রান্ত শুরু হয়েছে। নগরীর চলমান উন্নয়ন কাজ পরিদর্শনে আমার যাওয়ার বিষয়টি নিয়েও তারা অপপ্রচার চালানোর চেষ্টা চালাচ্ছেন।