দেশে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে আরও ৩৫ জনের মৃত্যু হয়েছে। এ নিয়ে মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৬ হাজার ৬৪৪ জনে। সোমবার (৩০ নভেম্বর) স্বাস্থ্য অধিদপ্তর থেকে পাঠানো এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়। এছাড়া, গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে ২ হাজার ৫২৫ জন করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। এ নিয়ে দেশে করোনা শনাক্ত হলো মোট ৪ লাখ ৬৪ হাজার ৯৩২ জনের। এতে জানানো হয়, গত ২৪ ঘণ্টায় সুস্থ হয়েছেন ২ হাজার ৫৩৯ জন। এ পর্যন্ত সুস্থ হয়েছেন ৩ লাখ ৮০ হাজার ৭১১ জন। মারা যাওয়া ৩৫ জনের মধ্যে ২৪ জন পুরুষ ও ১১ জন নারী। সবাই হাসপাতালে মারা গেছেন।

বিভিন্ন বিভাগে যারা মারা গেছেন তাদের মধ্যে ঢাকায় ২৫ জন, চট্টগ্রামে ১ জন, রাজশাহীতে ৪ জন, খুলনায় ২ জন, সিলেটে ১ জন ও রংপুরে ১ ময়মনসিংহে ১ জন রয়েছেন।

বয়সভিত্তিক বিশ্লেষণে দেখা যায়, নিহতদের মধ‌্যে শূন‌্য থেকে ১০ বছরের মধ‌্যে ১ জন, ১১ থেকে ২০ বছরের মধ‌্যে ১ জন, ৪১ থেকে ৫০ বয়সের মধ্যে ৫ জন, ৫১ থেকে ৬০ বছরের মধ্যে ৮ জন, ৬০ বছরের ওপরে ২০ জন রয়েছেন।

এদিকে, বিশ্বে মহামারি করোনাভাইরাসের দ্বিতীয় ঢেউ চলছে। নতুন রোগী শনাক্তের হার বাড়ার পাশাপাশি সমানতালে বাড়ছে মৃত্যুর সংখ্যা। জন হপকিন্স বিশ্ববিদ্যালয় (জেএইচইউ) থেকে প্রকাশিত সর্বশেষ তথ্য অনুযায়ী, সোমবার (২৯ নভেম্বর) সকাল পর্যন্ত বিশ্বব্যাপী করোনায় আক্রান্ত হয়ে মৃতের সংখ্যা পৌঁছেছে ১৪ লাখ ৫৮ হাজার ৩৬০ জনে।

এছাড়া, ভাইরাসে আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৬ কোটি ২৬ লাখ ৭০ হাজার ১৫৩ জনে। জেএইচইউ’র তথ্য অনুযায়ী, সারা বিশ্বে প্রাণঘাতী এ ভাইরাস থেকে এখন পর্যন্ত সুস্থ হয়েছেন ৪ কোটি ৭০ হাজার ৫৩৪ ব্যক্তি।

গত বছরের ডিসেম্বরে চীনের উহানে প্রথম করোনাভাইরাস শনাক্ত হয়। চলতি বছরের ১১ মার্চ বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও) করোনাকে মহামারি ঘোষণা করে। এর আগে ২০ জানুয়ারি জরুরি পরিস্থিতি ঘোষণা করে ডব্লিউএইচও।

করোনাভাইরাসে সবচেয়ে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র। এ পর্যন্ত দেশটিতে ১ কোটি ৩৩ লাখ ৭৬ হাজার ১১৩ জন করোনায় আক্রান্ত এবং ২ লাখ ৬৬ হাজার ৮৩৮ জন মৃত্যুবরণ করেছেন।

পৃথিবীর দ্বিতীয় জনবহুল দেশ ভারত রয়েছে করোনায় আক্রান্ত দেশের তালিকায় দ্বিতীয় স্থানে এবং মৃত্যু নিয়ে আছে তৃতীয় অবস্থানে। ল্যাটিন আমেরিকার দেশ ব্রাজিল আক্রান্ত দেশের তালিকায় তৃতীয় স্থানে থাকলেও সর্বাধিক মৃতের সংখ্যায় রয়েছে দ্বিতীয়তে।

দক্ষিণ এশিয়ার দেশ ভারতে মোট আক্রান্ত প্রায় ৯৪ লাখ মানুষ এবং মারা গেছেন ১ লাখ ৩৬ হাজার ৬৯৬ জন। ব্রাজিলে মোট শনাক্ত রোগী প্রায় ৬৩ লাখ ১৫ হাজার এবং মৃত্যু হয়েছে ১ লাখ ৭২ হাজার ৮৩৩ জনের।

রোগী শনাক্তের দিক দিয়ে তালিকার পরবর্তী কয়েকটি দেশ হলো- ফ্রান্স (২২ লাখ ৭০ হাজারের বেশি), রাশিয়া (প্রায় ২২ লাখ ৫০ হাজার), স্পেন (১৬ লাখ ২৮ হাজারের বেশি) ও যুক্তরাজ্য (১৬ লাখ ২১ হাজারের বেশি)।

মৃতের দিক দিয়ে বিশ্বে চতুর্থ স্থানে আছে মেক্সিকো (১ লাখ ৫ হাজার ৪৫৯ জন)। তারপরে যুক্তরাজ্যে ৫৮ হাজার ৩৪২ জন, ইতালিতে ৫৪ হাজার ৯০৪ জন, ফ্রান্সে ৫২ হাজার ৪১০ জন ও ইরানে ৪৭ হাজার ৮৭৪ জন মারা গেছেন।

এদিকে, করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে ২৪ ঘণ্টায় দেশে আরো ২৯ জনের মৃত্যুর মধ্য দিয়ে মোট মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়াল ৬ হাজার ৬০৯ জনে।

রোববার স্বাস্থ্য অধিদপ্তর থেকে পাঠানো নিয়মিত সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে অনুযায়ী, ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে ১ হাজার ৭৮৮ জনের শরীরে করোনা শনাক্ত হওয়ায় মোট আক্রান্তের সংখ্যা ৪ লাখ ৬২ হাজার ৪০৭ জনে পৌঁছেছে।

বিজ্ঞপ্তি অনুযায়ী, করোনা থেকে সুস্থ হয়েছেন আরো ২ হাজার ২৮৭ জন। এ নিয়ে দেশে মোট সুস্থ ব্যক্তির সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৩ লাখ ৭৮ হাজার ১৭২ জনে। শনাক্ত বিবেচনায় সুস্থতার হার ৮১ দশমকি ৭৮ শতাংশ।

গত ৮ মার্চ বাংলাদেশে প্রথম করোনা রোগী শনাক্তের পর ১৮ মার্চ প্রথম একজনের মৃত্যুর কথা জানায় স্বাস্থ্য অধিদপ্তর।